পর পর দুবার করোনায় আক্রান্ত একই ব্যক্তি : কপালে চিন্তার ভাঁজ চিকিৎসকদের

বং শিলিগুড়ি টাইমস : পর পর দুবার করোনাতে আক্রান্ত হলো একই ব্যক্তি। ঘটনাটি ঘটেছে জলপাইগুড়িতে। যে ব্যক্তির করোনা ধরা পড়েছে তিনি এর আগেও একবার করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং চিকিৎসার পর সুস্থও হয়ে উঠেছিলেন । তবে এই ঘটনা এই প্রথম বার ঘটেনি। এর আগেও চিনে এই ধরণের ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, আক্রান্ত ওই ব্যক্তির বাড়ি জলপাইগুড়ির কদমতলায়। তার বয়স ৪৫ বছর । তিনি ময়নাগুড়ির প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্মী। এর আগে জুন মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে তিনি করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। পরে তার করোনা পজিটিভ আসে। চিকিৎসার পর তিনি সুস্থ হয়ে যান । এবং দ্বিতীয়বার টেস্টের রিপোর্টও নেগেটিভ আসে। তিনি এরপর কাজেও যোগ দেন। এই কয়েকদিন আগে তার শরীরে আবার করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। তিনি চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী আবার করোনা টেস্ট করেন । এবং তার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

চিকিৎসকদের একাংশের মত, এটি খুব একটা অস্বাভাবিক কোনো ঘটনা নয় । জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ , সূবর্ণ গোস্বামী বলেন, যেহেতু করোনা ভাইরাসের এন্টিবডি বেশিদিন দেহে সক্রিয় থাকে না তাই দ্বিতীয় বার শরীরে সংক্রমণ হতেই পারে । এক্ষেত্রে কোভিডের টিকাও কতদিন শরীরে সংক্রমণ ঠেকাতে পারবে তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে । মনে করা হচ্ছে , টিকার প্রভাব শরীরে তিন মাসের বেশি থাকতে পারবেনা।

অপর এক সিনিয়র কনসালটেন্ট পারমিতা ত্রিবেদী যিনি কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার সাথে যুক্ত , তিনি জানান, কোভিডে একবার আক্রান্ত হওয়ার পর মানুষের শরীরে ওই ভাইরাসকে চেনার জন্য এক ধরণের মেমোরি সেল তৈরি হয় । এক্ষেত্রে সেটি তৈরি হচ্ছেনা । তিনি জল বসন্ত রোগের উদাহরণ দিয়ে বোঝান , যেভাবে পক্সের ক্ষেত্রে শরীরে এই মেমোরি সেল তৈরি হয় যা পরে শরীরে এই ভাইরাস ঢুকলে তাকে সহজেই চিহ্নিত করে এবং তাড়াতাড়ি ধ্বংস করে দেয় ।

উত্তরবঙ্গের করোনা চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা সুশান্ত রায়ের কাছে এই ঘটনার রিপোর্ট জমা পড়েছে। স্বাস্থ্য দফতরেও রিপোর্ট জমা করা হয়েছে । দুবার সংক্রমণের ঘটনা ভাবাচ্ছে চিকিৎসক সহ পুরো স্বাস্থ্য দফতরকে । তবে এর আগেও উত্তরবঙ্গেই এই ধরণের রিপিট ইনফেকশনের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যাচ্ছে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here