বিমানে চড়ে চেন্নাই থেকে কলকাতায় চলে এলেন এক করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি

বং শিলিগুড়ি টাইমস: গত ২৬ শে জুন বিমানে চড়ে চেন্নাই থেকে সোজা কলকাতা বিমান বন্দর এ চলে এলেন এক কোরোনা আক্রান্ত ব্যক্তি। শুধু তাই নয়, এরপর গাড়ি তে সোজা পৌঁছে গেলেন নিজের বাড়ি। জানা গেছে ওই ব্যক্তির বাড়ি শান্তিপুর ব্লকের বেলঘড়িয়া ২ পঞ্চায়েতের গবার চর এলাকায়। তিনি চেন্নাই এ শ্রমিকের কাজ করতেন। কোরোনা র জন্য কিছু দিন আগেই তার নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় । কিন্তু রিপোর্ট আসার অপেক্ষা না করেই তিনি বিমানে চড়ে বাড়ি ফেরেন। এবং যথারীতি বাড়ি ফেরার পর তার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

এনিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। কোরোনা নিয়ে এক ব্যক্তি কি করে বিমানে চড়ে বসলেন এটি গভীর চিন্তার বিষয়। তাহলে বিমানের নজরদারি ব্যবস্থায় বা কত টা সুরক্ষিত! কেন করা হচ্ছে এতটা ঢিলেমি! জেলা প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে ওই ব্যক্তির সহযাত্রী, বিমান কর্মী এবং যে গাড়িতে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন সেই গাড়ির চালক সবাই কে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে তিনজন শান্তিপুর এর ই বাসিন্দা। ইতিমধ্যেই তাদের লালারস এর নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

এই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটেছিল পূর্ব মেদিনীপুর এর পাশকুড়ায়। সেখানে দুইজন কোরোনা আক্রান্ত ব্যক্তি বিমানে চড়ে দক্ষিণ ভারত থেকে বাড়ি ফেরেন। পরে স্থানীয় হাসপাতালে গিয়ে তারা জানায় যে তারা করোনা আক্রান্ত। এইসব ঘটনায় বার বার প্রশ্ন উঠছে বিমানের নজরদারির ওপর।

তৃণমূল এর রানাঘাট সাংগঠনিক জেলার সভাপতি শংকর সিংহ এর মতে এই ধরণের গাফিলতিতে মুখ্যমন্ত্রী আগেও সরব হয়েছেন। অসামরিক বিমান পরিবহনের এই সব গাফিলতিতে সমস্যা আরো বাড়ছে।পাল্টা অভিযোগে রানাঘাটের সাংসদ বিজেপির সদস্য জগন্নাথ সরকার বলেন, এই রাজ্যে কোনোদিন ই লকডাউন ঠিক মত মানা হয়নি। আর অনেক ক্ষেত্রেই করোনার উপসর্গ লক্ষ্য করা যাচ্ছেনা।এক্ষেত্রেও হয়তো তাই হয়েছে। কিন্তু এত কিছুর পরেও প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে বিমানের পরিসেবার ওপর। এখনো বিমান যাত্রা কতটা সুরক্ষিত তা ভাবাচ্ছে অনেকেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here