কিশোরীর ধর্ষণ ও রহস্যমৃত্যুতে রণক্ষেত্র চোপড়া

উত্তর দিনাজপুর: বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে মাধ্যমিক উত্তীর্ণ কিশোরীকে ধর্ষণ ও খুনের অভিযোগে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল উত্তর দিনাজপুর চোপড়ায়। অভিযুক্তকে গ্রেফতার ও শাস্তির প্রতিবাদে জাতীয় সড়ক অবরোধ করে স্থানীয় লোকজন। এমনকি সরকারি বাস জ্বালিয়ে দাওয়া হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পাথর ছুঁড়ে লোকজন। ফলে পুলিশের সাথে খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায়। পুলিশের গাড়িতেও আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যাচ্ছে, গত শনিবার রাতে জোর করে সদ্য মাধ্যমিক পাশ বছর ১৫ ওই কিশোরীকে অপহরণ করে নিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। বাড়ির পাশে একটি জায়গায় নিয়ে গিয়ে প্রথমে গণধর্ষণ ও পরে জোর করে বিষ খাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। সকালে স্থানীয় লোকজন একটি বটগাছের নীচে কিশোরীকে দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানায়। পরে ইসলামপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।


মৃতের পরিবারের অভিযোগ, কিশোরীকে গণধর্ষণ ও জোর করে বিষ খাইয়ে খুন করা হয়েছে। এর পর থেকে গোটা এলাকা অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। বিক্ষোভ দেখতে শুরু করে স্থানীয় মানুষজন। ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কে দফায় দফায় গাছের ডাল ও টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখানো হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চোপড়া থানার আইসি , জেলা পুলিশ সুপার সহ অনেক কর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তাঁদের লক্ষ করে ইটবৃষ্টি শুরু হয়। এলাকাবাসীরা জানান, দোষীরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত পথ অবরোধ চলবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here